22 জন দেখেছেন
"স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে করেছেন (33,353 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ

কাঁচা ছোলা ভিজিয়ে, খোসা ছাড়িয়ে,
কাঁচা আদার সঙ্গে খেলে শরীরে একই সঙ্গে
আমিষ ও অ্যান্টিবায়োটিক যাবে। আমিষ
মানুষকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান বানায়। আর
অ্যান্টিবায়োটিক যেকোনো অসুখের বিরুদ্ধে
যুদ্ধ করে।ছোলার কিছু চমকপ্রদ গুণাগুণ হল-
যৌনশক্তি বৃদ্ধিতে: যৌনশক্তি বৃদ্ধিতে এর
ভূমিকা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। শ্বাসনালিতে জমে
থাকা পুরোনো কাশি বা কফ ভালো হওয়ার জন্য
কাজ করে শুকনা ছোলা ভাজা। ছোলা বা বুটের
শাকও শরীরের জন্য ভীষণ উপকারী। প্রচুর
পরিমাণে ডায়াটারি ফাইবার বা আঁশ রয়েছে
এই ছোলায় ও ছোলার শাকে। ডায়াটারি
ফাইবার খাবারে অবস্থিত পাতলা আঁশ, যা
কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। তাই শুধু রমজান মাস
নয়, ১২ মাসেই ছোলা হোক আপনার সঙ্গী।
ডাল হিসেবে: ছোলা পুষ্টিকর একটি ডাল। এটি
মলিবেডনাম এবং ম্যাঙ্গানিজ এর চমৎকার
উৎস। ছোলাতে প্রচুর পরিমাণে ফলেট এবং
খাদ্য আঁশ আছে সেই সাথে আছে আমিষ,
ট্রিপট্যোফান, কপার, ফসফরাস এবং আয়রণ।
হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে: অস্ট্রেলিয়ান গবেষকরা
দেখিয়েছেন যে খাবারে ছোলা যুক্ত করলে
টোটাল কোলেস্টেরল এবং খারাপ কোলেস্টেরল
এর পরিমাণ কমে যায়। ছোলাতে দ্রবণীয় এবং
অদ্রবণীয় উভয় ধরনের খাদ্য আঁশ আছে যা
হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।
রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে: আমেরিকান মেডিকেল
অ্যাসোসিয়েশন জার্নালে প্রকাশিত একটি
গবেষণায় দেখানো হয় যে যে সকল অল্পবয়সী
নারীরা বেশি পরিমাণে ফলিক এসিডযুক্ত
খাবার খান তাদের হাইপারটেনশন এর প্রবণতা
কমে যায়। যেহেতু ছোলায় বেশ ভাল পরিমাণ
ফলিক এসিড থাকে সেহেতু ছোলা খেলে রক্তচাপ
নিয়ন্ত্রণে রাখা সহজ হয়। এছাড়া ছোলা
বয়সসন্ধি পরবর্তীকালে মেয়েদের হার্ট ভাল
রাখতেও সাহায্য করে।
রক্ত চলাচল: অপর এক গবেষণায় দেখা গেছে যে
যারা প্রতিদিন ১/২ কাপ ছোলা, শিম এবং মটর
খায় তাদের পায়ের আর্টারিতে রক্ত চলাচল
বেড়ে যায়। তাছাড়া ছোলায় অবস্থিত
আইসোফ্লাভন ইস্কেমিক স্ট্রোকে আক্রান্ত
ব্যক্তিদের আর্টারির কার্যক্ষমতাকে বাড়িয়ে
দেয় ।
ক্যান্সার রোধে: কোরিয়ান গবেষকরা তাদের
গবেষণায় প্রমাণ করেছেন যে বেশি পরিমাণ
ফলিক এসিড খাবারের সাথে গ্রহণের মাধ্যমে
নারীরা কোলন ক্যান্সার এবং রেক্টাল
ক্যান্সার এর ঝুঁকি থেকে নিজিদেরকে মুক্ত
রাখতে পারেন। এছাড়া ফলিক এসিড রক্তের
অ্যালার্জির পরিমাণ কমিয়ে এ্যজমার প্রকোপও
কমিয়ে দেয়।আর তা্ই নিয়মিত ছোলা খান এবং
সুস্হ থাকুন।

করেছেন (33,353 পয়েন্ট)

সংশ্লিষ্ট প্রশ্নসমূহ

2 টি উত্তর
02 ফেব্রুয়ারি 2020 "স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Atiqur Rahman Atik (24,141 পয়েন্ট)
1 টি উত্তর
1 টি উত্তর
09 ফেব্রুয়ারি 2020 "স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Atiqur Rahman Atik (24,141 পয়েন্ট)
1 টি উত্তর
09 ফেব্রুয়ারি 2020 "স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Atiqur Rahman Atik (24,141 পয়েন্ট)
1 টি উত্তর
04 ফেব্রুয়ারি 2020 "স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Atiqur Rahman Atik (24,141 পয়েন্ট)
1 টি উত্তর
1 টি উত্তর
28 জানুয়ারি 2020 "স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Atiqur Rahman Atik (24,141 পয়েন্ট)
1 টি উত্তর
28 জানুয়ারি 2020 "স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Atiqur Rahman Atik (24,141 পয়েন্ট)
1 টি উত্তর
20 জানুয়ারি 2020 "স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Atiqur Rahman Atik (24,141 পয়েন্ট)
...