"যৌন" বিভাগে অজ্ঞাতকুলশীল

1 উত্তর

0 টি ভোট
অনৈচ্ছিক বীর্যপাতের নামই হলো ধাতু দূর্বলতা ৷ এক্ষেত্রে  ইচ্ছা, উত্তেজনা, নাড়াচাড়া ছাড়াই পেশাবের আগে বা পরে
পুরুষাঙ্গ হতে বীর্য বের হয, অথবা প্রস্রাবের সাথে বা কঠোর মেহনত, বোঝা উত্তোলন অথবা উত্তেজনা আসার দ্বারা কিংবা মহিলাকে স্পর্শ করার দ্বারা বীর্যপাত হয়। আবার অনেক সময় জোর খাটানোর সময় বীর্যপাত হয়ে যায়। তদ্রুপভাবে ঘুমে গেলে বীর্যপাত হয়।
বীর্যপাত হওয়ার দ্বারা শরীরে অলসতা ও ধাতু দূর্বলতা দেখা দেয়। এমনকি কোমরে ব্যথাও অনুভব হয়।

মানষিক লক্ষণঃ
সবচেয়ে ক্ষতিকর দিক হলো মাথার ব্রেণে দুর্বলতা প্রকাশ পায়। চেহারা শুকিয়ে যায়। শারীরিক দুর্বলতাও ব্যাপকভাবে প্রকাশ পায়। কোনো কাজেই ভালো
লাগে না। সব কাজেই বিরক্তি বিরক্তি ভাব দেখা দেয়। সব সময় মনে চায় যদি শুয়ে থাকতে পারতাম। মহিলাদের প্রতি
যৌন আকর্ষণ হ্রাস পেতে পেতে এক সময় তাদের প্রতি কোনো চাহিদাই জাগে না। কারো সাথে মেলা- মেশা, কথাবার্তা বলতেও ভালো লাগে না। নীরব ও অন্ধকার লাগে। একাকী ও নির্জনতা পছন্দ হয়। কারো কারো অবস্থা এমন করুণ হয়ে দাড়ায়, যার কারণে
আত্মহত্যার জন্যও প্রস্তুতি নেয়। এসব কেবল ধাতু দুর্বলতার কারণে হয়ে থাকে।

ধাতু দুর্বলতা রোগের কারণঃ
ধাতু দুর্বলতার অনেক কারণ আছে ৷ সেগুলির মধ্যে নিম্মোক্ত কারণগুলো বেশিরভাগ লোকদের মাঝে পাওয়া যায়......
১) উত্তেজনার বশিভুত হয়ে হস্তমৈথুন করে বীর্যপাত ঘটানো।
২) সমকামিতার মাধ্যমে বীর্যপাত ঘটানো।
৩) সব সময় পেটের অসুখ লেগে থাকার কারণে ধাতু দূর্বলতা হয়।
৪) কতক সময় অধিক গরম ও বিলম্বে হজম হয় এমন খাদ্য খাওয়ার দ্বারা।
৫) ভরপেটে সহবাস করার দ্বারা ধাতু দূর্বলতার দেখা দেয়।
৬) অশ্লীল, যৌন উদ্দীপক ছবি দেখার দ্বারা বীর্যপাত হয়ে থাকে। আর এসব কারণেই বেশিরভাগ ধাতু দুর্বলতা
রোগ সৃষ্টি হয়ে থাকে।
অজ্ঞাতকুলশীল

সংশ্লিষ্ট প্রশ্নসমূহ

1 টি উত্তর
13 অক্টোবর 2019 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা অজ্ঞাতকুলশীল
1 টি উত্তর
13 অক্টোবর 2019 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা অজ্ঞাতকুলশীল
1 টি উত্তর
15 জানুয়ারি "পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা অজ্ঞাতকুলশীল
1 টি উত্তর
1 টি উত্তর
23 অক্টোবর 2019 "রোগ, চিকিৎসা ও ঔষধ" বিভাগে জিজ্ঞাসা অজ্ঞাতকুলশীল
...