38 জন দেখেছেন
20 আগস্ট 2019 "সৌন্দর্য ও রূপচর্চা" বিভাগে জিজ্ঞাসা

2 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
দ্রুত কোনো কিছুই কিন্তু ভালো না.. তারপর ও দ্রুত ফর্সা হওয়ার কিছু টিপস ১। সঠিক পণ্যটি বাছাই করুন: ব্লিচের বক্সটি সাধারণত হেয়ার ডাইয়ের মতোই হয়, পার্থক্যটা শুধু সেখানে ‘ফেসিয়াল হেয়ার ব্লিচ’ কথাটা লেখা থাকবে। এর মধ্যে পাউডারের ছোট একটি প্যাক এবং লিকুইডের একটি বোতল থাকবে।’ ২। তৈরী হয়ে নিন: পুরাতন কোন টপস্‌ গায়ে দিয়ে এবং হাতে হ্যান্ড গ্লভস্‌ পরে নিলে রঙ লাগার ঝামেলা থাকবেনা। একটি প্লাস্টিক বা গ্লাস বোলে যতোটা প্রয়োজন ব্লিচ পাউডার নিন এবং বোতল থেকে অল্প পরিমাণ লিকুইড মেশান। (যদি ব্লিচ পাউডারের সাথে আলাদা এক্টিভেটর থাকে তবে ব্লিচ পাউডারের চারভাগের একভাগ এক্টিভেটর মেশাবেন)। ক্রিমের মতো তৈরী করতে যতটুকু লিকুইড প্রয়োজন ততটুকুই মেশান। এসময় ব্লিচের রঙ পরিবর্তন হয়ে হালকা আকাশী হবে। ৩। এবার মেক-আপ এর ব্রাশ বা কোন প্লাস্টিকের টুকরো দিয়ে ব্লিচ লাগানো শুরু করুন। ব্লিচ লাগানোর সময়টি মনে রাখুন। ৪। সবসময় নাকের নিচ থেকে শুরু করবেন এবং একটু বেশি লাগাবেন, কারণ মুখের এই অংশের লোমগুলো একটু বেশি ঘন। এবার সারা মুখে আলতো করে লাগিয়ে নিন। হেয়ার লাইনগুলোতে সাবধানে লাগাবেন। চোখ এবং এর আশপাশের নমনীয় ত্বক ব্লিচ থেকে দূরে রাখুন। ৫। ব্লিচ লাগানোর পর ১০ মিনিটের বেশি রাখবেন না। কারণ এতে আপনার ত্বকের টিস্যুগুলো নষ্ট হয়ে জ্বলে যেতে পারে। তবে ৭ মিনিট পর থেকেই প্রথম যেই জায়গা গুলোতে লাগিয়েছেন সেখান থেকে তুলতে শুরু করুন। ৬। কোথাও যদি শক্ত হয়ে যায় তবে একটি তুলা পানিতে ভিজিয়ে তুলে ফেলুন। ৭। ব্লিচের মিশ্রণ পুরোপুরি তুলে ফেলার পর ভালভাবে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের PH ঠিক রাখার জন্য এক্ষেত্রে জনসন এন্ড জনসন অথবা ডাভ সাবান ব্যবহার করতে পারেন। ৮। ত্বককে ময়শ্চারাইজ করতে এবং ফ্রেশ লুক পেতে ব্লিচের পর টোনার ব্যবহার করতে পারেন। এভাবে সঠিক নিয়মে ব্লিচ করতে পারলে খুব অল্পসময়ে আপনি পেয়ে যাবেন ফর্সা, উজ্জ্বল ও গ্লোয়িং ত্বক।
20 আগস্ট 2019 উত্তর প্রদান
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ

ছেলেরা দিনের বেশিরভাগ সময় বাইরে কাটান। তাই ঘর থেকে বের হওয়ার আগে হাত-মুখ ধুয়ে সানক্রিম বা লোশন লাগিয়ে নেওয়া উচিত। ব্যাগের মধ্যে একটা ফেইশল বা ফেইসওয়াশ রাখা ভালো। শহরের যানজট আর ধুলাবালির মধ্যে অফিসে পৌঁছে প্রথমেই ব্যাগে রাখা ফেইসওয়াশ দিয়ে হাত-মুখ ধুয়ে ফ্রেশ হয়ে নিন। এতে ভালোভাবে কাজে মনোযোগ দেওয়া যায়।


যারা সারাদিন হাত-মুখ পরিষ্কার করার সময় পান না বললেই চলে, তারা মাসে অন্তত একদিন কোনো বিউটি সেলুনে গিয়ে ফেইশল করাতে পারেন। এখন তো ছেলেদের জন্য বেশ কয়েকটি আলাদা বিউটি পার্লার আছে।


এসব জায়গায় গিয়ে যাদের শুষ্ক ত্বক তারা সানবার্ন ফেইশল করাতে পারেন। এটা রোদেপোড়া ত্বকের জন্যও উপকারী। যাদের ত্বক তৈলাক্ত, তারা করাতে পারেন অ্যালোভেরা ও গোল্ড ফেইশল।


ত্বকে ব্রণের সমস্যা থাকলে আয়ুর্বেদিক ফেইশল করালে উপকার পাবেন। ঘরে বসে ত্বকের যত্ন নিতে চাইলে রোদেপোড়া ভাব কমাতে চন্দনের প্যাক লাগাতে পারেন।


ত্বকে ব্ল্যাকহেডস থাকলে গরম পানিতে কিছু সময় ভাপ নিয়ে আস্তে আস্তে দুই আঙুলের ডগা দিয়ে চেপে ব্ল্যাকহেডস বের করতে পারেন

16 জানুয়ারি উত্তর প্রদান

সংশ্লিষ্ট প্রশ্নসমূহ

2 টি উত্তর
1 টি উত্তর
1 টি উত্তর
06 নভেম্বর 2019 "সাধারণ জ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা
1 টি উত্তর
1 টি উত্তর
1 টি উত্তর
1 টি উত্তর
...